বিপাশা বিনতে হক

বিপাশা বিনতে হকের জন্ম ঢাকায়, ২২ শে জুলাই, ১৯৭৫-এ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রীর পর তিনি ইংল্যান্ডের ওয়ারউইক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি ভাষা শিক্ষায় দ্বিতীয় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি এডুকেশনে পি এইচ ডি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অফ নিউ সাউথ ওয়েলস-এ। তার গবেষণার বিষয় ছিল ইংরেজি শিক্ষার্থীদের ওপর বিভিন্ন উচ্চারণের প্রভাব কীভাবে কাজ করে, তা খতিয়ে দেখা। বর্তমানে তিনি ইউনিভার্সিটি অফ নিউ ইংল্যান্ড-এ শিক্ষকতা করছেন। বিপাশা কবিতা ও প্রবন্ধ লেখেন। কবিতা লেখেন বাংলা, ইংরেজি ও সিলেটি, তিনটি ভাষায়। ভাবের নূন্যক্তি তার কবিতার প্রাণ।
3 লেখা

লেখার সময়টা কখন?

কোনো একদিন অন্যমনে শোনা যায় এমন সব হেমন্তদিনের কথা—হয়তো ওরা বিবাগী হাওয়া ডেকে আনে, যে ইশারায় বলে, কাজে লেগে থাকা তেমন কোনো কাজের কথা না। ভাবুক মনটি বাস্তুসাপ হয়ে ভিটা মাটির মায়ায় তবুও পাক খেয়ে যায় এ কোটর থেকে সে কোটর।
নাগরী লিপি; এক বহতা ঐতিহ্য-গাথা

নাগরী লিপি; এক বহতা ঐতিহ্য-গাথা

দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা সিলেট ও বরাক এলাকার ১ কোটি ৮০ লক্ষ মানুষ এ ভাষায় কথা বলেন। এ ভাষার সঙ্গে অহমিয়া ও পূর্ব বাংলার কথ্য ভাষারীতির মিল রয়েছে; এর একটি বৈশিষ্ট্য হলো এতে অসংখ্য ফার্সি ও আরবী শব্দের মিশেল রয়েছে। ব্যাকরণের দিক থেকে সিলেটি ভাষা এর নিজস্ব নিয়ম কানুন মেনে চলেসিলেটি নাগরী লিপি

শব্দ কল্প দ্রুম: কবিতার পটভূমি | বিপাশা বিনতে হক

সূফী ঘরানার একটি গল্প শোনাই: এক গ্রামের পাশে একটি রহস্যময় প্রাচীর ছিল। কেউ যদি প্রাচীন এই...